Reading education tips

সিরাজউদ্দৌলা নাটকের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

এইচএসসি পরীক্ষা-২০২২ (শেষ মুহুর্তের প্রস্তুতি)

বাংলা-প্রথম পত্র

নাটক-সিরাজউদ্দৌলা

গুরুত্বপূর্ণ সব তথ্যের মাধ্যমে সম্পূর্ণ নাটক পড়ে ফেলার পদ্ধতি

সিরাজউদ্দৌলা

সিকান্দার আবু জাফর (১৯১৮-১৯৭৫)

লেখক পরিচিতি:

জন্ম ১৯১৮ সালে সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার তেঁতুলিয়া গ্রামে। তাঁর সম্পাদিত মাসিক সাহত্য পত্রিকার নাম ‘সমকাল’।

তাঁর সৃষ্টিসমূহ: ‘আমাদের সংগ্রাম চলবেই’, ‘বাংলা ছাড়ো’, ‘মাকড়সা’, ‘শকুন্ত উপাখ্যান’, ‘মহাকবি আলাওল।

১৯৬৬ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কারে ভূষিত হন। – ১৯৭৫ সালের ৫ আগস্ট মৃত্যুবরণ করেন।

ফোর্ট উইলিয়াম দুর্গের।

প্রথম অঙ্কের প্রথম দৃশ্য

১। প্রথম অঙ্কের প্রথম দৃশ্যের ঘটনা কত তারিখের?

১৯৫৬ সালের ১৯ জুন ন্যের ঘটনা কোন প্রানের স্থানের?

৩। দুর্গ প্রাচীরে মুষ্ঠিমেয় গোলন্দাজ দিয়ে কামান চালাচ্ছিল কে?

ক্যাপ্টেন ক্লেটন।

৪। “চুপ বেইমান। কাপুরুষ বাঙালির কথায় যুদ্ধ বন্ধ হবে না”- উক্তিটি কার?

ক্যাপ্টেন ক্লেটন, ওয়ালি খানকে উদ্দেশ্য করে বলে।

৫। ”হোয়াট? যত বড় মুখ নয় তত বড় কথা” উক্তিটি কাকে উদ্দেশ্য করে।

ওয়ালি খান।

৬। ইংরেজরা নবাবের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাবার পক্ষে কাদের কাছে সাহায্য চেয়েছিল?

ডাচদের কাছে এবং ফরাসিদের কাছে।

৭। হলওয়েল উমিচাঁদের কাছে কী সাহায্য প্রার্থনা করে?

মানিকচাঁদকে পত্রের মাধ্যমে যুদ্ধ বন্ধের অনুরোধ করার।

৮। গভর্নর রজার ড্রেক আর ক্যাপ্টেন ক্রেটন কীসে করে পালিয়ে যায়? নৌকায়।

৯। গভর্নর ড্রেককে পালাতে দেখে কে গুলি ছুঁড়েছিল?

একজন রক্ষী।

১০। সার্জন হলওয়েল কোথায় কাজ করতো?

=গাইস হাসপাতালে।

১১। দুর্গের গঙ্গার দিকের ফটক ভেঙে পালিয়ে যায় কারা?

একদল ডাচ সৈন্য।

১২। দুর্গে সাদা নিশান উড়ানোর পরামর্শ কে দেয়? উমিচাঁদ।

১৩। কাশিমবাজার কুঠি থেকে নবাব কাদের বন্দি করে?

ওয়াটস ও কলেটকে।

১৪। নবাবের আদেশ অমান্য করে ইংরেজরা কাকে আশ্রয় দেয়?

কৃষ্ণ বল্লভকে।

১৫। বাংলার মসনদে বসার পর ইংরেজরা নবাবকে কী পাঠায়নি?

নজরানা।

১৬। নবাব কোন বাড়িটি কামানের গোলায় নিশ্চিন্ন করে দেবার হুকুম দেয়?

গভর্নর ড্রেকের বাড়ি।

১৭। হলওয়েল ফরাসিদের কী বলে মন্তব্য করে?

ডাকাত।

১৮। ফোর্ট উইলিয়াম দুর্গ জয় করার পর নবাব কলকাতার নাম কী দেন?

আলিনগর।

১৯। নবাব আলিনগরের দেওয়ার নিযুক্ত করে কাকে?

রাজা মানিকচাঁদকে।

২০। কলকাতা অভিযানের খরচ নবাব কাদের বহন কতে বলে?

কোম্পানির প্রতিনিধি ও কোম্পানির সাথে সংশ্লিষ্ট প্রত্যেক ইংরেজকে।

২১। হলওয়েল, ওয়াটস ও কলেটকে মুর্শিদাবাদে নিয়ে যাবার হুকুম দেয় কাকে?

রায়দুর্লভকে।

প্রথম অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ্যঃ

১। প্রথম অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ্য কত তারিখের?

১৭৫৬ সালের ৩ জুলাই।

২। প্রথম অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ্য কোন স্থানের?

কলকাতার ভগীরথী নদীতে ফোর্ট উইলিয়াম জাহাজের।

৩। কিলপ্যাট্রিক কোথা থেকে ফিরে আসে?

মাদ্রাজ।

৪। কিলপ্যাট্রিক কতজন সৈন্য নিয়ে হাজির হয়?

আড়াইশো।

৫। নবাবকে উদ্ধৃত ভাষায় চিঠি দিয়েছিল কে?

ড্রেক।

৬। নবাবের আদেশ অমান্য করে কৃষ্ণবপ্নকে কে আশ্রয় দিয়েছিল?

ড্রেক।

৭। ড্রেক কার কাছে থেকে ঘুষ খেয়েছে বলে হ্যারি উল্লেখ করে?

কৃষ্ণবল্লভকে।

৮। কোম্পানির সত্তর টাকা বেতনের কর্মচারী কে?

মার্টিন ও হ্যারি।

৯। মার্টিন ও হ্যারির ব্যাংক ব্যালেন্স কত বলে দ্রেক উল্লেখ করে?

বিশ হাজার।

১০। “আমরা আপনার কর্তৃত্ব মানব না” কে কাকে বলে?

মার্টিন ড্রেককে বলে।

১১। উমিচাঁদ কাকে হাত করেছে বলে হলওয়েল বলে?

মানিকচাঁদকে।

১২। উমিচাঁদ মানিকচাঁদকে কত টাকা ঘুষ দিয়েছে বলে ড্রেককে চিঠিতে উল্লেখ করে?

বারো হাজার টাকা।

১৩। উমিচাঁদ পারিশ্রমিক হিসেবে ড্রেকের কাছে কত টাকা দাবি করে?

পাঁচ হাজার।

১৪। উমিচাঁদের বাড়ি কোথায়?

লাহোর।

১৫। “আমি চিরকালই ইংরেজের বন্ধু”-উক্তিটি কার?

উমিচাঁদের।

১৭। সমুদ্রের দিক থেকে ভাগীরথী নদীর ফোর্ট উইলিয়াম জাহাজের দিকে ইংরেজদের কয়টি জাহাজ আসে?

পাঁচটি।

১৮। ইংরেজরা কতগুণ দাম দিয়ে সওদাপাতি কিনে?

চারগুণ।

১৯। কার হঠকারিতার জন্য ইংরেজদের এই দুর্ভোগ?

ট্রেক।

২০। নবাবের হুকুমে কাদের কাছে প্রকাশ্যে জিনিস বেচা নিষেধ?

ইংরেজদের।

২। প্রথম অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্য কোন স্থানের? ঘসেটি বেগমের বাড়ি।

প্রথম অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্য।

১। প্রথম অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্য কত তারিখের?

১০ অক্টোবর ১৭৫৬

৩। ঘসেটি বেগমের বাড়িতে উমিচাঁদ কাকে নিয়ে যায়?

রাইসুল জুহালা।

৪। রাইসুল জুহালা কার নৃত্যকলা দেখায়?

পক্ষীকূলের একটি বিশেষ শ্রেণির।

৫। রাইসুল জুহালাকে কী দায়িত্ব দেওয়া হয় ?

চিঠিপত্র আদান-প্রদানের।

৬। শওকতজঙ্গ নবাব হলে পরোক্ষভাবে কে দেশ শাসন করবে বলে জগৎশেঠ উল্লেখ করে?

রাজবল্লভ।

৭। “দওলত আমার কাছে ভগবানের দাদামশাইয়ের চেয়েও বড়।”

উক্তিটি কার? = উমিচাঁদের।

৮। ঘসেটি বেগমের বাড়িতে সিরাজউদ্দৌলার সাথে কে গিয়েছিল?

মোহনলাল। ২৯।

ঘসেটি বেগমের বাড়ি কোথায়?

মতিঝিল।

১০। শওকত জঙ্গকে শিক্ষা দেবার জন্য কাকে পাঠানে হয়?

মোহনলালকে।

দ্বিতীয় অঙ্কের প্রথম দৃশ্য

১। দ্বিতীয় অঙ্কের প্রথম দৃশ্য কত তারিখের ?

১৭৫৭ সালের ১০ মার্চ।

২। দ্বিতীয় অঙ্কের প্রথম দৃশ্য কোন স্থানের?

নবাবের দরবারের।

৩। “আমাকে শেষ করে দিয়েছে হুজুর।” উক্তিটি কার?

উৎপীড়িত ব্যক্তির।

৪। উৎপীড়িত ব্যক্তির বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয় কারা?

ইংরেজ কুঠিয়ালরা।

৫। ইংরেজ কুঠিয়ালরা উৎপীড়িত ব্যক্তির বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয় কেন?

লবণ বিক্রি না করায়।

৬। কতজন ইংজের উৎপীড়িত ব্যক্তির স্ত্রীকে নির্যাতন করে মেরে ফেলে?

পাঁচজন।

৭। ইংরেজরা উৎপীড়িত ব্যক্তির নখের ভেতর কী ফুটিয়ে দেয়?

খেজুরকাটা।

১১। ইংরেজ কুঠিয়ালরা কাদের কাছে লবণ বিক্রি করতো?

তিন-চার আনা

৮। উৎপীড়িত ব্যক্তির পেশা কী?

= লবণ প্রস্তুত করা ।

৯। লবণের ইজারাদার কারা?

ইংরেজ কুঠিয়াল।

১০। ইংরেজ কুঠিয়ালরা কত আনা মণ দরে লবণ বিক্রি করে?

বাঙালিদের কাছে।

১২। ইংরেজ কুঠিয়ালরা কত টাকা মণ দরে লবণ বিক্রি করতো?

দুটাকা-আড়াই টাকা মণ দরে।

১৩। শুধু ওই একটি পথেই আবার আমরা উভয়ে উভয়ের কাছাকাছি আসতে পারি” উক্তিটি কার?

নবাবের।

১৪। চন্দননগর কাদের অধীনে ছিল?

ফরাসিদের।

১৫। ইংরেজরা আলিনগরের সন্ধি ভঙ্গ করে কোথায় আক্রমণ করে?

চন্দননগর।

১৬। “বোঝা যতই দুর্বহ হোক একাই তা বইবার চেষ্টা করবো।” -উক্তিটি কার?

নবাবের।

১৭। ইংরেজরা চন্দননগর ধ্বংস করার জন্য কাকে ঘুষ দেয়?

নন্দনকুমারকে।

দ্বিতীয় অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ্যঃ

১। দ্বিতীয় অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ্য কত তারিখের ?

১৭৫৭ সালের ১৯ মে।

২। দ্বিতীয় অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ্য কোন স্থানের?

মিরজাফরের আবাসের।

৩। মানিকচাঁদ কত টাকা মুক্তিপণ দিয়ে মুক্তিলাভ করে? করে?OB

দশ লক্ষ।

৪। জগৎশেঠকে ইয়ার লতিফ খাঁয়ের অধীনে কত অশ্বারোহী পুষতে হয়?

দুই হাজার।

৫। মিরজাফরের প্রাসাদে রাইসুল জুহালা তার প্রবেশপত্র কতবার দেখায়?

একুশ বার।

৬। উমিচাঁদের চিঠি ক্লাইভের কাছে কে নিয়ে যায়?

রাইসুল জুহালা।

৭। ক্লাইভের গুপ্তচর শব্দের উচ্চারণ রাইসুল জুহালার কাছে কেমন শোনায়?

ঘুফুচোর।

৮। “সন্দেহ করাটা অবশ্য বুদ্ধিমানের কাজ; কিন্তু বেশি সন্দেহে বুদ্ধি ঘুলিয়ে যেতে পারে”- উক্তিটি কে কাকে করে?

রাইসুল জুহালা জগৎশেঠকে।

৯। মিরজাফর রাইসুল জুহালাকে দিয়ে উর্মিচাঁদের কাছে কী পাঠায়?

সাংকেতিক মোহর।

১০। “সফল করতে হবে আমার স্বপ্ন”-কার উক্তি?

মিরজাফরের।

দ্বিতীয় অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্য:

১। দ্বিতীয় অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্য কত তারিখের?

১৭৫৭ সালের ৯ জুন।

২। দ্বিতীয় অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্য কোন স্থানের?

দ্বিতীয় অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্য:

১। দ্বিতীয় অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্য কত তারিখের ?

১৭৫৭ সালের ৯ জুন ।

২। দ্বিতীয় অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্য কোন স্থানের?

মিরনের আবাসের।

৩। “আমি নাচ-গানে মশগুল থাকতেই ভালোবাসি”-কার উক্তি?

মিরনের।

৪। মিরনের বাসভবনে কোম্পানির প্রতিনিধি কোন জায়গা থেকে আসে? কোন জায়গা থেকে আসে?

কাশিমবাজার।

৫। নবাবের পতন হলে রায়দুর্লভ কোন পদ দাবি করে?

সিপাহসালারের পদ।

৬। মিরনের আবাসস্থলে রমণীর ছদ্মবেশে কারা প্রবেশ করে।

ওয়ার্টস ও ক্লাইভ।

৭। ”উমিচাঁদ এ যুগের সেরা বিশ্বাসঘাতক” উক্তিটি কে কাকে করে?

ক্লাইভ মিরজাফরকে।

৮। উমিচাঁদ কোম্পানির কাছে কত টাকা দাবি করে?

ত্রিশ লক্ষ।

৯। নকল দলিলে ওয়াটসনের সই কে নকল করে?

লুসিংটন।

১০। নবাবের পতন হলে কোম্পানি কত টাকা পাবে বলে দলিলে উল্লেখ ছিল?

এক কোটি।

১১। নবাবের পতন হলে কলকাতার বাসিন্দারা কত টাকা ক্ষতিপূরণ পাবে বলে দলিলে উল্লেখ ছিল?

= সত্তর লক্ষ।

১২। নবাবের পতন হলে ক্লাইভ কত টাকা পাবে বলে দলিলে উল্লেখ ছিল?

দশ লক্ষ।

১৩। দলিলের চুক্তি অনুযায়ী রাজ্য চালাবে কে?

কোম্পানি।

১৪। ”শুভকাজে অযথা বিলম্ব করা বুদ্ধিমানের কাজ নয়”-উক্তিটি কার?

মিরজাফরের।

১৫। “আমরা এমন কিছু করলাম যা ইতিহাস হবে”-উক্তিটি কার?

ক্লাইভের।

১৬। নবাব বিশ্বাস করে পলাশী যুদ্ধের সৈন্য পরিচালনার ভার কাকে দিয়েছিল?

মিরজাফরকে।

তৃতীয় অঙ্কের প্রথম দৃশ্যঃ

১। তৃতীয় অঙ্কের প্রথম দৃশ্য কোন স্থানের?

লুৎফুন্নিসার কক্ষের।

২। “সিরাজ বাংলার নবাব- আমি তার প্রজা” উক্তিটি কার?

ঘসেটি বেগমের।

৩। আলিবর্দি খাঁয়ের মৃত্যুশয্যায় সিরাজ কী প্রতিজ্ঞা করেছিল?

কোনদিন শরাব স্পর্শ করবে না।

৪। “আমার সারা অস্তিত্ব জুড়ে কেবল যেন দেয়ালের ভিড়”-কে, কাকে বলে?

সিরাজউদ্দৌলাকে লুৎফাকে।

৫। সিরাজউদ্দৌলাকে বাধ্য হয়ে কী প্রতিপালন করতে হচ্ছে বলে লুৎফাকে জানায়?

শওকতজঙ্গের হারেম।

তৃতীয় অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ

১। তৃতীয় অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ্যের ঘটনা কোন স্থানের?

পলাশীতে সিরাজের শিবিরের।

২। তৃতীয় অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ্যের ঘটনা কত তারিখের?

১৭৫৭ সালের ২২ জুন।

৩। পলাশি যুদ্ধে ইংরেজদের পক্ষে কতজন সৈন্য ছিল?

তিন হাজার।

৪। পলাশি যুদ্ধে নবাবের পক্ষে কতজন সৈন্য ছিল?

পঞ্চাশ হাজারের বেশি।

৫। পলাশি যুদ্ধে ইংরেজদের কতটি কামান ছিল?

১০ টি।

৬। পলাশি যুদ্ধে নবাবের কতটি কামান ছিল?

৫০ টির বেশি।

৭। “ওর কাছে সবকিছুই যেন বড় রকমের জুয়াখেলা” কে, কার সম্পর্কে বলে? :

সিরাজউদ্দৌলা ক্লাইভ সম্পর্কে।

৮। ইংরেজ সৈন্য কোথায় আশ্রয় নেয়?

লক্ষবাগে।

৯। মিরমদনের জামাতার নাম কী?

বদ্রিআলী খাঁ।

১০। কত বড় শক্তি, তবু কত তুচ্ছ মিরমদান”-কার উক্তি?

সিরাজউদ্দৌলার।

১১। নবাবের বিশ্বস্ত সেনাপতিদের অধীনে কত ঘোড়সওয়ার ছিল?

পাঁচ হাজার।

১২। নবাবের বিশ্বস্ত সেনাপতিদের অধীনে কত পদাতিক সৈন্য ছিল?

আট হাজার।

১৩। নবাব বেইমান সেনাবাহিনীকে যুদ্ধক্ষেত্রে আনে কেন?

চোখে চোখে রাখার জন্য।

১৪। নবাব মীরজাফরকে যুদ্ধের সর্বময় কর্তৃত্ব দেয় কেন?

সেনাবাহিনীর অভ্যন্তরীণ গোলযোগ এড়ানোর জন্য।

১৫। কমর বেগ কোন গ্রামের লোক?

পলাশি গ্রামের।

১৬। মিরজাফরের গুপ্তচরের নাম কী?

উমর বেগ ।

১৭। কমর বেগ জমাদারের ভাইয়ের নাম কী?

উমর বেগ। ১৮। উমর বেগকে কে হত্যা করে?

মোহনলাল।

১৯। উমর বেগের হাতে কার চিঠি ছিল?

ক্লাইভের।

২০। নবাব কমর বেগকে কখন মুক্তি দেবার কথা বলে?

যুদ্ধ শেষ হবার পর।

পিছু হটে কোথায় আ২। তৃতীয় অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্যের ঘটনা কত তারিখের?

তৃতীয় অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্যঃ

১। তৃতীয় অঙ্কের তৃতীয় দৃশ্যের ঘটনা কোন স্থানের?

পলাশির যুদ্ধক্ষেত্রের।

১৭৫৭ সালের ২৩ জুন। ৩। যুদ্ধের প্রথম মহড়ায় কোম্পানীর ফৌজ পিছু হটে কোথায় আশ্রয় নেয়?

লক্ষবার্গে।

৪। কাদের সৈন্যবাহিনী যুদ্ধে যোগ দেয়নি?

ক) মিরজাফর

খ) ইয়ার লুৎফা খাঁ

গ) রায়দুর্লভ

৫। নবাবের কাছে প্রথম কার ঘায়েল হবার খবর আসে?

নৌবে সিং হাজারির।

৬। ‘দরকার হলে যুদ্ধক্ষেত্রে আমি প্রাণ দেব’- কার উক্তি?

সাঁক্ষে।

৮। ‘দি ব্রেভেস্ট সোলজার ইজ ডেড। কে কার সম্পর্কে উক্তি করেছে?

সাঁফে মিরমদান সম্পর্কে।

১০। ‘আমার শেষ যুদ্ধ পলাশিতেই”-কার উক্তি?

মোহনলাল।

১১। নবাব মিরমদানের লাশ কোথায় পাঠানোর আদেশ করে?

মুর্শিদাবাদ।

১২। ক্লাইভ কাকে বুটের লাথি মারে?

রাইসুল জুহালাকে। ১৩। রাইসুল জুহালা প্রকৃতপক্ষে কার গুপ্তচর?

সিরাজউদ্দৌলার।

১৪। রাইসুল জুহালার আসল নাম কী?

নারান সিং।

১৫। রাইসুল জুহালাকে কে গুলি করে হত্যা করে? রে হত্যা করে

= ক্লাইভ।

১৬। ‘এ দেশে থেকে এ দেশকে ভালবেসেছি।’-কার উক্তি?

নারান সিং । তৃতীয় অঙ্কের চতুর্থ দৃশ্য:

১। তৃতীয় অঙ্কের চতুর্থ দৃশ্যের ঘটনা কোন স্থানের?

মুর্শিদাবাদে নবাবের দরবারের।

২। তৃতীয় অঙ্কের চতুর্থ দৃশ্যের ঘটনা কত তারিখের?

১৭৫৭ সালের ২৫ জুন।

২। তৃতীয় অঙ্কের চতুর্থ দৃশ্যের ঘটনা কত তারিখের?

১৭৫৭ সালের ২৫ জুন।

৩। ‘এই প্রাণদান আমরা ব্যর্থ হতে দেব না।’-কার

উক্তি?

সিরাজউদ্দৌলার।

৪। নগরের অধিকাংশ লোক পালাচ্ছিল কেন?

বিজয়ী সৈন্যের অত্যাচার ও লটতরাজের ভয়ে।

৫। সিরাজউদ্দৌলার শ্বশুরের নাম কী?

মুহম্মদ ইরচ খাঁ।

৬। ভীরু প্রতারকের দল চিরকালই পালায় – কার উক্তি?

সিরাজউদ্দৌলার।

৭। ‘এই অস্ত্র নিয়ে আমরা কাপুরুষ দেশদ্রোহীদের অবশ্যই দমন করতে পারবো’ – এখানে সিরাজ কোন অস্ত্রের কথা বলেছেন?

দেশপ্রেম।

৮। রাজবল্লভ কোন বর্ণের লোক ছিলেন?

ব্রাহ্মণ।

৯। রায়দুর্লভ কোন বর্ণের লোক ছিলেন?

কায়ছ।

১০। মহাতাব চাঁদ শেঠ কোন ধর্মের লোক ছিল?

জৈন।

১১। উমিচাঁদ কোন ধর্মের লোক ছিল ?

শিখ।

১২। নবাবের সাথে বিহার থেকে কে যুদ্ধে যোগ দেবেন বলে তিনি উল্লেখ করেন?

রামনারায়ণ ।

১৩। নবাবের সাথে পাটনা থেকে কে যুদ্ধে যোগ দেবেন বলে তিনি উল্লেখ করেন?

ফরাসি বীর মসিয়ে ল।

১৪। মুর্শিদাবাদ থেকে নবাব কোথায় যাবার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল?

পাটনা।

আরো পডুন= আমার জীবনের লক্ষ্য গল্প

আরো পডুন= HSC বাংলা ২য় পত্র সাজেশন ২০২২

চতুর্থ অঙ্কের প্রথম দৃশ্যঃ

১। চতুর্থ অঙ্কের প্রথম দৃশ্যের ঘটনা কোন স্থানের

মিরজাফরের দরবার।

২। চতুর্থ অঙ্কের প্রথম দৃশ্যের ঘটনা কত তারিখের?

১৭৫৭ সালের ২৯ জুন।

৩। ক্লাইভের পদবী কী? = কর্নেল।

৪। মিরজাফর মসনদে পাশে দাঁড়িয়ে কার অপেক্ষায় ছিলেন?

কর্নেল ক্লাইভ।

৫। মিরজাফর কার হাত ধরে মসনদে বসেন?

৬। ‘বাংলার মসনদের জন্য আমি আপনার কাছে ঋণী’-কার উক্তি?

মিরজাফর ক্লাইভ বলে।

৭। ক্লাইভ কোম্পানির তরফ থেকে মিরজাফরকে কী নজরানা দেয়?

ফুলের তোড়া।

৮। ‘খুন কর, আমাকে খুন কর”-কার উক্তি?

উমিচাঁদ ।

১৯। সিরাজউদ্দৌলা হেরে গেলে উমিচাঁদকে কত টাকা দেবার কথা ছিল বলে উমিচাঁদ দাবি করে?

বিশ লক্ষ ।

১০। নবাবের রাজকোষ ভাগ করে ক্লাইভের ভাগে কত টাকা পড়ে বলে উমিচাঁদ উল্লেখ করে?

একুশ লক্ষ।

১১। মিরজাফর ক্লাইভকে কী পুরস্কার দেয়?

চব্বিশ পরগণার স্থায়ী মালিকানা।

১২। চব্বিশ পরগণা থেকে বার্ষিক কত টাকা আয় হয়?

চার লক্ষ ।

১৩। সিরাজউদ্দৌলা কোথায় ধরা পড়ে?ভগবানগোলায়।

১৪। সিরাজউদ্দৌলা কার হাতে ধরা পড়ে?

মিরকাশিমের সৈন্যদের হাতে।

১৫। ক্লাইভ সিরাজকে কোথায় আটকে রাখার পরামর্শ দেয়?

জাফরগঞ্জের কয়েদখানায়।

১৬। সিরাজকে হত্যার জন্য মোহাম্মদী বেগ কত টাকা দাবি করে?

দশ হাজার টাকা। এর মধ্যে পাঁচ হাজার টাকা অগ্রিম।

চতুর্থ অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ্য

১। চতুর্থ অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ্যের ঘটনা কোন স্থানের?

জাফরগঞ্জের কয়েদখানায়।

২। চতুর্থ অঙ্কের দ্বিতীয় দৃশ্যের ঘটনা কত তারিখের?

১৭৫৭ সালের ২রা জুলাইয়ের।

৩। মোহাম্মদি বেগ প্রথমে নবাবকে কী দিয়ে আঘাত করে?

লাঠি দিয়ে।

৪। মোহাম্মদি বেগকে কে পুত্রশ্নেহে লালন করেছে?

সিরাজউদ্দৌলার পিতা-মাতা।

২। ‘রামজিকি কসম, ম্যায় কোরবান হু নবাবকে নিয়ে’-কে বলে?

অন্যান্য তথ্য

১। সিরাজের পতন কে না চায়? – কার উক্তি?

ঘসেটি বেগমের।

উমিচাঁদের।

৩। সিরাজউদ্দৌলার স্ত্রীর নাম

লুৎফুন্নিসা।

৪। ক্ষমতালোভী ও স্বার্থপর নারী

ঘসেটি বেগম।

৫। ঘসেটি বেগমের কাছ থেকে সিরাজ টাকা ধার করেছিল কেন?

দেশের প্রয়োজনে।

৬। নবাব কীভাবে আত্মভুল সংশোধন করতে চায়?

= স্বহস্তে যুদ্ধ করে।

৭। মিরজাফর যুদ্ধ বন্ধের আদেশ দেয় কেন?

নবাবের পতন নিশ্চিত করতে।

৮। নবাবের মুর্শিদাবাদে পালিয়ে আসার কারণ কী?

রাজ্যের স্বাধীনতা রক্ষা করা।

৯। মিরন চরিত্রে কোন দিকটি ফুটে উঠেছে?

নারী লোলুপতা।

মানসিক দুর্বলতা।

১০। ‘বোঝা যতই দুর্বহ হোক একাই তা বইবার চেষ্টা করবো’-উক্তিটিতে কী প্রকাশ পেয়েছে?

নবাবের আক্ষেপ।

১১। চারিদিকে শুধু অবিশ্বাস আর ষড়যন্ত্র’-উক্তিটির অন্তর্নিহিত তাৎপর্য কী?

আত্মস্বার্থ রক্ষার খেলা।

১২। রায়দুর্লভের প্রধান সেনাপতির পদ চাওয়ায় প্রকাশ পেয়েছে

উচ্চাভিলাধিতা।

১৩। দরবারে উপস্থিত সভাসদদের কাছে নিজেকে অপরাধী হিসেবে উপস্থাপন করায়

নবাবের কোন মানসিকার প্রকাশ ঘটেছে?

প্রজাবাৎসল্য।

১৪। ‘নবাবের কোন ক্ষমতাই নেই’ ক্লাইভের এ উক্তির কারণ কী?

নবাবের নিকটস্থরা প্রতারক।

১৫। উমিচাঁদকে ঠকানোয় ক্লাইভের কোন মানসিকতার পরিচয় পাওয়া যায়?

ঠকবাজ ।

১৬। মিরজাফরের বুকের ভেতর কেঁপে ওঠার মধ্যে কোনটি স্পষ্ট হয়।

১৭। মিরজাফরের গোপন চিঠির মধ্যে কী প্রকাশ পেয়েছে?

বিশ্বাসঘাতকতা।

১৮। ঘসেটি বেগমের লুৎফাকে দোয়া করতে না চাওয়ায় কোনর মানসিকতা ফুটে উঠেছে?

স্বার্থপর মানসিকতা।

১৯। ওয়াদা ভঙ্গকারীদের প্রতিকার করতে না পারার মধ্যে নবাবের কোন বৈশিষ্ট্য প্রকাশ পেয়েছে?

মহানুভবতা।

২০। কিন্তু আমরা হারব কেন?-মিরমদানের এ উক্তিতে কী প্রকাশ পায়?

বিজয়ে দৃঢ়বিশ্বাসী।

২১। ফরাসি সৈনিক সাঁফ্রের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যে কী লক্ষণীয়!

দায়িত্বশীলতা।

২২। অস্ত্রহাতে নবাবের যুদ্ধে যাবার ইচ্ছা প্রকাশে কী ফুটে ওঠে?

দেশপ্রেম।

২৩। সিরাজউদ্দৌলাকে হত্যা করায় মোহাম্মদি বেগের কোন চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য ফুটে ওঠে?

কৃতঘ্নতা ।

২৪। ‘ভগবান সিরাজউদ্দৌলাকে রক্ষা কর’-এ সংলাপটিতে নবাবের প্রতি কার ভালোবাসা প্রকাশ পেয়েছে?

নারান সিং।

২৫। রায়দুর্লভ আগন্তুককে জাহেলদের রইস বলায় কী প্রকাশ পেয়েছে?

তামাশা।

২৬। নবাবের বধুর সাথে ঘসেটি বেগমের রূঢ় ব্যবহারের কারণ কী? = ক) ক্ষমতালোভ খ) আত্মস্বার্থ গ) নবাবের পতন চাওয়া।

২৭। ভাগীরথী নদীতে ইংরেজদের জাহাজে কোন রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়?

ম্যালেরিয়া ও ডিসেন্ট্রি।

৩৬। ইংরেজরা কাদের সাহায্য চেয়ে পায়? = ফরাসি ও ডাচদের কাছ থেকে।

শওকতজঙ্গ।

২৯ । কোথায় ফিরেই নবাব ইংরেজদের মুক্তি দিয়েছেন বলে হলওয়েল জানায়?

মুর্শিদাবাদ।

৩০। ব্রিটিশ সিংহ ভয়ে লেজ গুটিয়ে নিলেন, এ বড় লজ্জার কথা-কার উক্তি?

উমিচাঁদের।

৩১। বাংলার প্রজাসাধারণের সুখস্বাচ্ছন্দ্য বিধান করতে পারিনি’ সংলাপটিতে নবাবের কোন মানসিকতা ফুটে উঠেছে?

ক) প্রজাবাৎসল্য খ) অপরাধী মনোভাব।

৩২। ব্যক্তি সিরাজ ও লুৎফার মাঝে কী বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল?

রাজত্বের দেয়াল।

৩৩। ক্লাইভা টান দিয়ে কার পরচুলা খুলে ফেলে

পেঁচা ও শেয়াল।

৩৫। মোহাম্মদি বেগ ছুরি দিয়ে নবাবকে কোথায় আঘাত করে?

পিঠে।

৩৭। মিরজাফরের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য হলো = ক) বিশ্বাসঘাতক খ) লোভী গ) ব্যক্তিত্বহীন।

৩৮। মিরন বন্দী সিরাজকে কী বলে সম্বোধন করে?

শয়তান।

৩৯ । ফোর্ট উইলিয়াম দুর্গের যুদ্ধে ইংরেজদের ক্যাপ্টেন ছিল কে?

ক্লেটন।

৪০। মিরজাফরের সামনে তলোয়ার উন্মোচন করেছিল কে?

মোহনলাল।

৪১। অগ্নিগিরির মতো প্রচন্ড গর্জনে ফেটে পড়ার জন্য কে তৈরি হচ্ছিল?

মিরজাফর।

৪২। মিরনের প্রাসাদের গোপন সভায় বিনা অনুমতিতে কে প্রবেশ করেছিল?

মোহনলাল।

৪৩। ইংরেজরা কোথায় অস্ত্র আমদানি করেছিল?

কাশিমবাজার কুঠিতে।

৪৪। সিরাজউদ্দৌলা এখন কয়েদি, ওয়ার ক্রিমিনাল”-কার উক্তি?

ক্লাইভ।

৪৫। কোম্পানির প্রতিনিধি হিসেবে নবাব কাকে দরবারে আশ্রয় দিয়েছিল?

ওয়াটসকে।

৪৬। মিরজাফরের কাছে লেখা ক্লাইভের কয়টি চিঠি ধরা পড়েছিল?

তিনটি।

৪৭। মিরনের বাসগৃহে ছদ্মবেশে প্রথম প্রবেশ করে কে?

রায়দুর্লভ।

৪৮। মিরজাফর কালকেউটে বলে কাকে?

উমিচাঁদকে।

৪৯। ‘দেশের স্বার্থের জন্য নিজেদের স্বার্থ তুচ্ছ করে আমরা নবাবের আজ্ঞাবহ হয়েই থাকবো।’-কার উক্তি?

মিরজাফরের।

৫০। ক্লাইভের মতে এযুগের সেরা বিশ্বাসঘাতক কে?

উমিচাঁদ।

৫১। রাইসুল জুহালার মতে ভূত ভূত চেহারা কাদের?

সাহেব মেমসাহেবদের।

৫২। ক্লাইভ ও ওয়াটস কোন সন্ধি খেলাপ করে?

আলিনগর সন্ধি।

৫৩। ইংরেজদের লোকজন লবন বিক্রেতার উপর যে সব জুলুম চালিয়েছে তা হলো র সব জুলুম চ

ক) বাড়িঘর জ্বালিয়েছে

খ) স্ত্রীকে খুন করেছে

গ) নখে খেজুর কাঁটা ফুটিয়েছে।

৫৪। ট্রেক ও ওয়াটসকে ভারতে বাণিজ্যের জন্য পাঠানোর কারণ কী?

ক) দুশ্চরিত্রতা খ) উচ্ছৃঙ্খলতা।

৫৫। ভাগীরথী নদীতে ইংরেজদের অবস্থা

ক) চরম দুরবস্থা

খ) খাদ্য নেই

গ) বস্ত্র নেই।

৫৬। সিরাজ বিচারের জন্য মুর্শিদাবাদে নিয়ে যেতে চায়

হলওয়েল, ওয়াটস ও কলেটকে।

৫৭। এ নাটকে প্রথম বন্দিত্ব থেকে মুক্তি পায়

উমিচাঁদ ও কৃষ্ণবল্লভ।

৫৮। ইংরেজদের কলকাতা দুর্গ সংস্কার করার পেছনে যুক্তি হলো

ক) আত্মরক্ষা

খ) ফরাসি ডাকাতদের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া।

ফটক।

সিরাজউদ্দৌলা  বর্ণনা  HSC 2022

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button